মাইক্রোওভেন এখন প্রায় প্রতিটি মধ্যবিত্ত পরিবারেই সামিল৷ খাবার গরম ক'রতে মাইক্রোওভেনের ব্যবহার আম'রা সবাই জানি৷ তাছাড়া কিছু রান্নাও মাইক্রোওভেনে করা যায় সে কথাও পুরনো৷ তবে এই মাইক্রোওভেন ব্যবহার করে আপনি আরও কিছু মুশকিল আসান ক'রতে পারেন৷ দেখে নিন সেগু'লি কি৷

ডিম পোচ: যারা গ্যাসে ডিম পোচ ক'রতে পারেন না তারা সহজেই মাইক্রোওয়েভ ওভেনে ডিম পোচ ক'রতে পারবেন। সকালের জলখাবারে কিংবা অফিসে চটজলদি ডিম পোচ করে ফেলা যায় মাইক্রোওয়েভ ওভেনে। এক্ষেত্রে পাউরুটির ওপর কিংবা ওভেনপ্রুফ পাত্রে ডিম ভে'ঙে ঢালুন। এরপর ওভেন উচ্চ তাপে দিয়ে ১ মিনিট রাখু'ন। ব্যাস হয়ে গেলো মাইক্রোওয়েভ ডিম পোচ!

মধু তরল করা: মধু খাওয়ার চল রয়েছে অনেক পরিবারে৷ সর্দি কাশির উপশম হিসেবে কিংবা রূপচর্চায় মধুর জুড়ি নেই। কিন্তু শীত কালে অনেক মধুই জমে যায়। মধুর নিচে একটি শক্ত স্তর প'ড়ে তরলতা কমে যায় মধুর। মধুর নিচের এই জমে যাওয়া স্তরটিকে সহজেই গলিয়ে নিতে পারবেন মাইক্রোওয়েভ ওভেনে। আর এজন্য মধুর বয়ামের ঢাকনা খু'লে বা পাত্রে ঢেলে নিয়ে মাঝারী তাপে ৩০-৬০ সেকেন্ড গরম করুন মধুটিকে। ওভেন থেকে বের করলে দেখবেন জমে যাওয়া স্তরটি তরল হয়ে গিয়েছে।

নারকেল তেল গলানো: চুলের রুক্ষ্ণতা দূ'র করার জন্য চুলে ব্যবহার করা হয় নারকেল তেল। কিন্তু শীতে নারকেল তেল নিয়ে পড়তে হয় বিপত্তিতে। কারন শীতে নারিকেল তেল জমে যায়। নারিকেল তেল নিয়ে আর বিপত্তিতে পড়তে হবে না। কারণ মাইক্রোওয়েভ ওভেনে খুব সহজেই গলিয়ে ফেলা যায় জমে যাওয়া নারিকেল তেল। জমাট নারিকেল তেল মাইক্রোওয়েভ ওভেনের মাঝারী তাকে ৩০-৪০ সেকেন্ড রাখু'ন। ব্যাস, এবার সহজেই ব্যবহার ক'রতে পারবেন নারকেল তেল।

মুড়ি কিংবা বিস্কুট মচমচে করা: অনেক সময় মুড়ি কিংবা বিস্কুটের প্যাকেট খু'লে পুরোটা খাওয়া হয়না। পরে খাওয়ার সময় দেখা যায় যে সেগুলোর মচমচে ভাব কমে গিয়েছে। তখন সেগুলো খেতে আর আগের মত ভালো লাগে না। ঘরে মাইক্রোওয়েভ ওভেন থাকলে এই স'মস্যা থেকে সহজেই মু'ক্তি পাবেন। উচ্চতাপে মাত্র একমিনিট রাখলেই আগের মত মচমচে হয়ে যাবে মুড়ি বা বিস্কুট।

সহজে লেবুর রস বের করা: লেবু কাটার আগে কিংবা কে'টে চেপার আগে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে ৩০-৪০ সেকেন্ড একটু গরম করে নিন। এতে লেবু খুব সহজেই চেপা যাবে এবং অনেক বেশি রস বের হবে। এছাড়াও এর সুগন্ধও পাবেন বেশি।